,

বাড়ি বানানোর জন্য রাখা এক লাখ টাকার চেক উপজেলা নির্বাহী অফিসারের হাতে তুলে দিচ্ছেন আব্দুর রহমান : একুশে আলো।

বাড়ি বানানোর পেনশনের টাকা ত্রাণ তহবিলে দিয়ে দিলেন অফিস সহায়ক

স্টাফ রিপোর্টার : করোনাভাইরাসের কারণে অসহায় ও কর্মহীনদের সহায়তার জন্য ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে ব্রয়লার ব্যবসায়ী সমিতির অফিস সহায়ক হাজী মো. আব্দুর রহমান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার ত্রাণ তহবিলে এক লাখ টাকা অনুদানের চেক তুলে দিয়েছেন।
বৃহস্পতিবার (৭ মে) আশুগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে উপস্থিত হয়ে নির্বাহী কর্মকর্তা মো. নাজিমুল হায়দারের কাছে এই টাকা তুলে দেন তিনি ।
এসময় আশুগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. হানিফ মুন্সি, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ফিরোজা পারভীন, ভাইস চেয়ারম্যান সেলিম পারভেজ, উপজেলা আওয়ামীলীগ এর যুগ্ম আহবায়ক হাজী মাহবুবুর রহমান উপস্থিত ছিলেন।
হাজী মো. আব্দুর রহমান জানান, খাদ্য অফিসের চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারী হিসেবে ২০১৭ সালে অবসরে যাই। পরে পেনশনের টাকা দিয়ে হজব্রত পালন করে আসি। কিছু টাকা রেখে দিয়েছিলাম বাড়ি করার আসায়। কিন্তু দেশের এই দুর্যোগময় সময়ে চিন্তা করে দেখলাম এখনই এই টাকা কাজে লাগানো দরকার। তাই বাড়ি করার জন্য রাখা হালাল এক লাখ টাকা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে তুলে দিয়েছি। এই টাকা অসহায় ও কর্মহীন মানুষের সহায়তার জন্য বন্টন করা হোক।
উপজেলা আওয়ামীলীগ এর যুগ্ম আহবায়ক হাজী মাহবুবুর রহমান জানান, আব্দুর রহমান বর্তমানে আশুগঞ্জে ব্রয়লার ব্যবসায়ী সমিতির অফিস সহায়ক হিসেবে কাজ করছেন। তার বাড়ি জেলার নবীনগর উপজেলার জিনদপুর এলাকায়। করোনাভাইরাসের কারনে মানুষের অসহায় অবস্থা দেখে সে এক লাখ টাকা অনুদান হিসেবে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে তুলে দেন।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. নাজিমুল হায়দার জানান, আব্দুর রহমান নিজে উপস্থিত হয়ে উপজেলা ত্রাণ তহবিলে এক লাখ টাকা অনুদানের চেক তুলে দিয়েছেন। এবং এই টাকা অসহায় মানুষের সহায়তার জন্য ব্যবহার করতে বলেছেন। নিজের বাড়ি বানানোর জন্য রাখা পেনশনের টাকা অনুদান বিষয়টি একটি ব্যতিক্রম উদাহরণ।

     এ ক্যটাগরীর আরো সংবাদ