,

বই হচ্ছে যুগান্তকারি পরিবর্তনের ধারক-বাহক

স্টাফ রিপোর্টার : কিশোরগঞ্জ জেলার বাজিতপুর উপজেলার বাংলা বাজারে গত ৩ আগস্ট সোমবার বিকাল ৩টায় শিকড় পাঠাগারের উদ্বোধন ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক নাছির উদ্দিন খানের সভাপতিত্বে এতে উদ্বোধক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন গাজীপুর জেলার সহকারী জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার আবু ইউসুফ খান। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার চিনাইর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব অনার্স কলেজের বাংলা বিভাগের বিভাগীয় প্রধান,বিশিষ্ট কবি ও লোকসংস্কৃতি গবেষক মহিবুর রহিম।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আবদুল মান্নান স্বপন উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা প্রধান শিক্ষক ও ‘ধমনি’ সম্পাদক আবদুল মান্নান স্বপন, নরসিংদী জেলার রায়পুরা উপজেলার পিটিআই ইন্সট্রাক্টর সাধারণ মো. কুতুব উদ্দিন, নেত্রকোণা জেলার খালিয়াজুরী উপজেলার সহকারী উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মো. রফিকুল ইসলাম, বাজিতপুর উপজেলার হাফেজ আব্দুর রাজ্জাক পাইলট মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক ও ‘মুক্তমত’ সম্পাদক মো. কামরুজ্জামান, সালুয়াদী স্বপ্ন পাঠাগার ও সংগ্রহশালার প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি কবি গোলাপ আমিন, বাংলা বাজার বণিক সমিতির সভাপতি আজহারুল ইসলাম সুমন, বাংলা বাজার বণিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মোকাদ্দাস আহম্মেদ ভূঁইয়া, উন্নয়নকর্মী জিয়াউল হক বাতেন প্রমুখ।
অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন ‘শিকড়’ পাঠাগারের প্রতিষ্ঠাতা কবি নাদিম ইবনে নাছির খান।

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি কবি মহিবুর রহিম বলেন-বই হচ্ছে যুগান্তকারী পরিবর্তনের ধারক। আমাদেরকে বইয়ের সাথে সম্পর্ক গড়ে তুলতে হবে। বইয়ের আগার হচ্ছে পাঠাগার। তিনি আরও বলেন- পাঠাগার হচ্ছে সবচেয়ে বড় পূণ্যস্থান। এর সমতুল্য কিছুই নেই। ইকরা বা পড়া হচ্ছে আল্লাহর নির্দেশ। এই নির্দেশ আমাদের সকলের জন্য। এই পড়া বা বইয়ের একটি মহৎ স্থান হচ্ছে পাঠাগার। তাই পাঠাগারকে সমাজের কেন্দ্রস্থল হিসেবে গড়ে তোলার আহ্বান জানান তিনি।
উদ্বোধনী বক্তব্যে জনাব আবু ইউসুফ খান বলেন- পাঠাগার হচ্ছে আলোর পীঠস্থান। পাঠাগারের মাধ্যমে আমাদের সমাজ সভ্যতা আলোকিত হবে। এই পাঠাগারের উদ্যোক্তাদের আমি আন্তরিক ধন্যবাদ জানাই।

     এ ক্যটাগরীর আরো সংবাদ